মোদি অশিক্ষিত, বললেন নির্মাতা অনুরাগ

গ্যাংস অব ওয়াসিপুর’ ও ‘স্যাকরেড গেমস’খ্যাত ভারতীয় নির্মাতা অনুরাগ কাশ্যপ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বলেছেন ‘অশিক্ষিত’।

সম্প্রতি একটি টুইটার পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘সিএএ বা সিএবি কোথাও যাচ্ছে না।

আর এখন যদি তারা নিজেরাই এটি তুলে নেয়, তাহলে সেটি তাদের কাছে পরাজয়ের সমান। কারণ তারা সবকিছুকে জয় অথবা পরাজয়, এই দুইয়ের মাঝে ফেলে দেয়। এই বাজে দম্ভ সবকিছুকে জ্বালিয়ে ছাই করে দেয়।

যেন মোদি কখনোই ভুল করতে পারেন না। অশিক্ষিত লোকেরা এমনই হয়।’

এরপর প্রধানমন্ত্রীকে ‘অশিক্ষিত’ শব্দটি ব্যবহার করায় সমালোচনার শিকার হন ভারতীয় নির্মাতা। তারপর শব্দচয়ন নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করে তিনি লেখেন, ‘আমি দুঃখিত।

কাউকে দুঃখ দেওয়া আমার উদ্দেশ্য না। আমি যা বোঝাতে চাইছি, আপনি নিশ্চয়ই সেটা বুঝতে পারছেন।

আমি কাউকে নীচু দেখাতে চাইনি। কাউকে অসম্মানও করতে চাইনি। আপনার যদি সে রকম কিছু মনে হয়, তাহলে আমি আন্তরিকভাবে দুঃখিত।’

এর আগেও অনুরাগ কাশ্যপ নরেন্দ্র মোদির সম্পর্কে নেতিবাচক মন্তব্য করে বলেন, ‘আমি মাঝেমধ্যে ভাবতাম, যদি পাকিস্তান না থাকত, তাহলে নরেন্দ্র মোদি কী নিয়ে কথা বলতেন? এখন দেখি,

আশপাশে ক্যামেরা দেখলেই মোদি কাজে লেগে যান।’ মোদিকে ‘আজেবাজে না বকতে’ও অনুরোধ করেন তিনি।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নারী, তরুণ, হতদরিদ্র, সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠী, উপজাতি—সবাইকে নিয়ে নতুন ভারত গড়তে একটা কবিতা পোস্ট করেন।

সেই কবিতা রিটুইট করে অনুরাগ কাশ্যপ লেখেন, ‘এসব আজেবাজে বকা বন্ধ করুন। আপনার যা মনে হয়, আপনি তা–ই বলেন। কী বলছেন, কখনো নিজে শুনেছেন? আপনি তরুণ, সংখ্যালঘুদের কথা শোনেন?

আপনার বিজেপির বন্ধুরা নারীদের শেষ করে দিচ্ছে। আর দরিদ্রদের তো আপনারা দেখতেই পান না। তাই দয়া করে অর্থহীন কথাবার্তা বন্ধ করুন।’

বলিউড তারকা শাহরুখ খান বা আমির খান এনআরসি (ন্যাশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেনস) বা সিএএ (সিটিজেনশিপ অ্যামেন্ডমেন্ট অ্যাক্ট) বিষয়ে চুপ থাকাই শ্রেয় মনে করেছেন।

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা আয়ুষ্মান খুরানা আর ভিকি কৌশল এ বিষয়ে কথা বলেছেন কৌশলে।

অজয় দেবগন বা বরুণ ধাওয়ানরা জানিয়েছেন, তাঁরা মন্তব্য করার ক্ষেত্রে দায়িত্বশীল হতে চান। যে বিষয়ে ভালো জ্ঞান নেই, সেই বিষয়ে তাঁরা কথা বলতে চান না।

টুইটারে অনুরাগ কাশ্যপের প্রোফাইলেও মোদি আর অমিত শাহের ছবি। সেখানে এই দুজনেরই মুখ ঢাকা আর হাতে লাঠি।

কভার ফটোয় লেখা, ‘আসুন, আমরা একতার পথে একসঙ্গে পথ চলি।’

অন্যদিকে ফারহান আখতার, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, জাভেদ আখতার, শাবানা আজমি, সায়ানী গুপ্তা, ভূমি পেড়নেকার, মৌসুমি ভৌমিক, পাপন, শান, রিচা চাডঢা, নিভিন পাউলি,

পরিচালক অনুভব সিনহাসহ আরও অনেকেই প্রকাশ্যে নতুন নাগরিকত্ব আইনের তীব্র সমালোচনা করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares